নেত্রীর ওপর ভরসা আছে, নিজেকে নির্দোষ বলেই যাচ্ছে আনারুল

নেত্রীর ওপর ভরসা আছে, নিজেকে নির্দোষ বলেই যাচ্ছে আনারুল

কলকাতা: রামপুরহাটের বগটুই গ্রামের হত্যাকাণ্ডের তদন্তভার তো সিবিআই আগেই পেয়েছিল। আজ রামপুরহাট পঞ্চায়েতের উপপ্রধান তথা তৃণমূল কংগ্রেস নেতা ভাদু শেখ হত্যা মামলার তদন্তভার সিবিআইকে দিয়েছে কলকাতা হাইকোর্ট। দুই ঘটনা একসঙ্গে জড়িয়ে আর বগটূই গ্রামের ঘটনায় অন্যতম মূল অভিযুক্ত আনারুল হোসেনের সঙ্গে ভাদু শেখের যথেষ্ট ঘনিষ্ঠতা ছিল। তাই আনারুলের চাপ যে আরও বাড়ল তা বলাই বাহুল্য। কিন্তু এখনও সে নিজেকে নির্দোষ বলেই দাবি করছে।

আরও পড়ুন- কেমন আছেন অনুব্রত? খোঁজ নিতে SSKM-এ সিবিআই অফিসার

শুক্রবারই রামপুরহাট আদালতে আনা হয়েছে বগটুই কাণ্ডে মুল অভিযুক্ত আনারুল হোসেনকে। সিবিআইয়ের টিম তাঁকে নিয়ে আসে। আদালতের বাইরে দাঁড়িয়ে আজও আনারুল দাবি করেছে যে, সে নির্দোষ, কিন্তু দলের নেত্রীর ওপর তাঁর ভরসা রয়েছে। সাংবাদিকদের সামনে সে বলে, বিচার ব্যবস্থার ওপর তাঁর ভরসা আছে, দলের নেত্রীকেও সে বিশ্বাস করে। আর সে নির্দোষ, তাঁকে ফাঁসানো হয়েছে। ঘটনাচক্রে গ্রেফতার হওয়ার মুহূর্ত থেকেই আনারুল এই একই দাবি করে আসছে। কিন্তু কে বা কারা তাঁকে ফাঁসিয়েছে সেই নিয়ে হাজারো প্রশ্ন। আনারুল অনুগামীরা সরাসরি অনুব্রত মণ্ডলের নাম নিয়েছে। কিন্তু আনারুল খোদ কারোর নাম না নিলেও পরোক্ষে বলেছে, যারা টিভিতে বেশি বক্তব্য রাখছে তারাই তাঁকে ফাঁসিয়েছে।

এদিকে কলকাতা হাইকোর্টের আজকের নির্দেশে বলা হয়েছে, ভাদু শেখের খুনের ঘটনা আর রামপুরহাট গণহত্যা পরস্পরের সঙ্গে যুক্ত বলে প্রথম থেকেই অভিযোগ উঠেছিল৷ সেই কারণেই ভাদু শেখের খুনের তদন্তভারও একইসঙ্গে সিবিআইকে দেওয়া হল৷ একই সঙ্গে দুটি ঘটনা খতিয়ে দেখবে সিবিআই৷ প্রকৃত অপরাধীদের চিহ্নিত করবেন তদন্তকারী অফিসাররা৷ ইতিমধ্যেই বগটুই কাণ্ডে প্রথম গ্রেফতারি করেছে সিবিআই। মুম্বই থেকে চারজনকে পাকড়াও করে তারা।  

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *