এত বছর দল করে দিলীপ ‘ঝুনঝুনি’ পেয়েছেন, তীব্র কটাক্ষ বাবুলের

এত বছর দল করে দিলীপ ‘ঝুনঝুনি’ পেয়েছেন, তীব্র কটাক্ষ বাবুলের

কলকাতা: একুশের বিধানসভা ভোটে উঠেছিল দল বদলের ঝড়। নির্বাচনের পর বিজেপি  ছেড়ে তৃণমূল কংগ্রেসে যোগ দিয়েছিলেন আসানসোলের সাংসদ বাবুল সুপ্রিয়। সে সময়ে বাবুলকে কটাক্ষ করে দিলীপ ঘোষ বলেছিলেন, ‘তৃণমূল ওঁকে ঝুনঝুনি দেবে’।

শনিবার সেই দিলীপই পদ হারা৷ দলের সর্বভারতীয় সহ সভাপতি পদ থেকে তাঁকে সরিয়ে দিলেন জেপি নাড্ডা, অমিত শাহরা। সেই খবর প্রকাশ্যে আসতেই দিলীপকে চাঁচাছোলা ভাষায় বিঁধলেন বাবুল। তিনি বলেন, “অবশেষে বাংলা বিজেপির ঠোঁট সিল করে দেওয়া হল। উনি এবার নিজের ওষুধের স্বাদ বুঝবেন। এত বছর দল করার পর উনি ঝুনঝুনি পেয়েছেন।” এখানে থেমে না থেকে  বাবুল আরও বলেন, “এখন উনি নিশ্চয়ই বুঝবেন পরিশ্রম করে জেতা সাংসদ পদ কেন আমি ওঁদের মুখের উপর ছুড়ে দিয়ে এসেছিলাম।”

একুশের বিধানসভা নির্বাচনের পরই দলে সমন্বয়ের অভাব নিয়ে মুখ খুলেছিলেন বাবুল সুপ্রিয়। সেই সময় পশ্চিমবঙ্গে বিজেপির রাজ্য সভাপতি ছিলেন দিলীপ ঘোষ। বাবুল মুখ খোলায় অস্বস্তিতে পড়েছিলেন তিনি৷ এখন দিলীপ আবার শুভেন্দু অধিকারী এবং সুকান্ত মজুমদারদের সিদ্ধান্ত ও পথের সমালোচনায় মুখর। রাজভবনের উপর বিজেপি নেতাদের অতি নির্ভরশীলতা, পঞ্চায়েতে ৬০ শতাংশ বুথে কোনও অশান্তি না হলেও খারাপ ফল করা, রাজ্যে ৩৫৫ ধারা লাগু করার প্রশ্নে বিরোধিতা করে মাথাব্যথা বাড়াচ্ছিলেন রাজ্য বিজেপির। ওয়াকিবহাল মহলের অনুমান, সম্ভবত সেই ‘শাস্তি’ হিসাবেই পদ গিয়েছে তাঁর৷ 

দলের একাংশের মতে, বাবুল বোঝাতে চেয়েছেন, বিজেপিতে মুখ খুললেই বিপদ। দিলীপ ঘোষ এত বছর দলের জন্য পরিশ্রম করেও শেষমেশ তাঁর হাতে ঝুনঝুনিই ধরানো হয়েছে। ধীরে ধীরে দলে তাঁকে অপ্রাসঙ্গিক করে দেওয়া হবে।

কেন্দ্রীয় বিজেপিকে আক্রমণ করতে গিয়ে অনুপমকেও নিশানা করেন বাবুল। তবে তাঁর নাম উল্লেখ করেননি। বাবুল লিখেছেন, ‘‘সর্বভারতীয় বিজেপি আসলে বাঙালিদের ঘৃণা করে। বাঙালিরা এই গদ্দার পার্টির কাছে মূল্যহীন। এখন শুধুমাত্র একটা জোকার বাংলা বিজেপির প্রতিনিধিত্ব করেন। সেটা যে কে আশা করি সবাই আন্দাজ করতে পারবেন।”

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

বাড়ছে ঝাঁঝ! দিলীপ-তথাগতর মতো নীচে নামতে পারব না, প্রচারে নেমে আক্রমণ বাবুলের

বাড়ছে ঝাঁঝ! দিলীপ-তথাগতর মতো নীচে নামতে পারব না, প্রচারে নেমে আক্রমণ বাবুলের

কলকাতা:  বালিগঞ্জের উপনির্বাচনকে কেন্দ্র করে চড়ছে উত্তেজনার পারদ৷ শুরু হয়েছে ঝাঁঝালো বাকযুদ্ধ৷ বালিগঞ্জ বিধানসভা কেন্দ্র থেকে বাবুল সুপ্রিয়কে প্রার্থী করেছেন তৃণমূল কংগ্রেস৷ উপনির্বাচনের প্রচারে নেমে প্রাক্তন সতীর্থকে একহাত নিলেন প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী৷ কটাক্ষ করে বললেন, ‘‘ওঁদের মতো নীচে নামতে পারব না।’’

আরও পড়ুন- কয়লা-কাণ্ডে ইডির তলব, হাজিরা দিতে এক দিন আগেই দিল্লি যাচ্ছেন অভিষেক-রুজিরা

রবিবাসরীয় সকালে পার্কসার্কাস এলাকায় ভোট প্রচারে গিয়েছিলেন আসনসোলের প্রাক্তন সাংসদ৷ সেখানে ফুটবলে কিক দেওয়ার পাশাপাশি ক্যারাটে  অনুশীলনেও অংশ নেন বাবুল সুপ্রিয়৷ সেই সময় সংবাদমাধ্যমের সামনে কথা বলতে গিয়ে ওঠে দিলীপ ঘোষের প্রসঙ্গ৷ এর আগে আজ সকালে প্রাতঃভ্রমণে বেরিয়ে বাবুলকে একহাত নিয়ে দিলীপ বলেছিলেন,  “আমি ওঁকে জিজ্ঞাসা করতে চাই,  টুপি তো পরলেন, লুঙ্গিটা কবে পরবেন? পোশাক বদলের মতো এঁরা দল বদলান৷ নৈতিক দিক থেকে পরাজিত৷ এখন হাতে-পায়ে ধরে মন্ত্রী হওয়ার তালে আছেন।”  দিলীপ ঘোষের এই মন্তব্যের পাল্টা জবাব দেন বাবুল৷ 

তিনি বলেন, ‘‘দিলীপ ঘোষের বক্তব্য নিয়ে আমাকে প্লিজ কিছু জিজ্ঞাসা করবেন না। উনি এবং তথাগত রায় নিজেদের জন্য অত্যন্ত নিম্ন একটি মান তৈরি করেছেন৷ ওঁদের সঙ্গে কিছু নেতা আছে৷ ওঁরা ওই মানেই থাকেন৷ ওঁদের ভাষাও তেমন। অতটা নীচে আমি নামি না, নামবও না।’’ আক্রমণ শানিয়ে বাবুল আরও বলেন, ‘‘ওঁরা নিজেদের মধ্যে নিম্ন ভাষার লড়াই করুন। আমি এ প্রসঙ্গে কিছু বলতে চাই না। ওঁরা ওঁদের মান নিয়ে থাকুক। আপনারা মজার ছলেই ও সব টিভিতে দেখান। আমি অত নীচে নামতে পারব না।’’