এইচআইভি প্রতিরোধে দেশে এক নম্বর বাংলা: মমতা

মায়ের থেকে শিশুদের মধ্যে এইচআইভি সংক্রমণ রুখতে দেশে এক নম্বর হল বাংলা। শনিবার বিশ্ব এইডস দিবসে এই খবর জানিয়ে ট্যুইট করেছেন মুখ্যমন্ত্রী তথা স্বাস্থ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ২০১৭-১৮ আর্থিক বছরে জাতীয় এইডস নিয়ন্ত্রণ পর্ষদের (ন্যাকো) সমীক্ষা থেকে এই তথ্য উঠে এসেছে বলে জানিয়েছেন মমতা। তিনি জানান, এই কর্মসূচির জন্য বাংলার ১৬.৫ লক্ষ প্রসূতি উপকৃত হয়েছেন। প্রসঙ্গত,

এইচআইভি প্রতিরোধে দেশে এক নম্বর বাংলা: মমতা

মায়ের থেকে শিশুদের মধ্যে এইচআইভি সংক্রমণ রুখতে দেশে এক নম্বর হল বাংলা। শনিবার বিশ্ব এইডস দিবসে এই খবর জানিয়ে ট্যুইট করেছেন মুখ্যমন্ত্রী তথা স্বাস্থ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ২০১৭-১৮ আর্থিক বছরে জাতীয় এইডস নিয়ন্ত্রণ পর্ষদের (ন্যাকো) সমীক্ষা থেকে এই তথ্য উঠে এসেছে বলে জানিয়েছেন মমতা। তিনি জানান, এই কর্মসূচির জন্য বাংলার ১৬.৫ লক্ষ প্রসূতি উপকৃত হয়েছেন। প্রসঙ্গত, ২০০২ সালে ন্যাকো ‘দ্য প্রিভেনশন অব পেরেন্ট টু চাইল্ড ট্রান্সমিশন অব এইচআইভি/এইডস’ কর্মসূচি শুরু করে। এইচআইভি আক্রান্ত মায়েদের থেকে বাচ্চাদের মধ্যে যাতে কোনওভাবেই এই রোগ না ছড়ায়, সেজন্য এই কর্মসূচি শুরু হয়। এই কারণে বিভিন্ন রাজ্যের সরকারি হাসপাতালের আইসিটিসি-তে মায়েদের কাউন্সেলিং এবং রোগপরীক্ষা দুই-ই হয়ে থাকে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *