হাসপাতালে আর থাকতে চাইছেন না বুদ্ধদেব, চিকিৎসকদের বললেন, ‘এ বার আমাকে ছেড়ে দিন’

হাসপাতালে আর থাকতে চাইছেন না বুদ্ধদেব, চিকিৎসকদের বললেন, ‘এ বার আমাকে ছেড়ে দিন’

কলকাতা:  প্রবল শ্বাসকষ্ট নিয়ে শনিবার দক্ষিণ কলকাতার বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিলেন রাজ্যের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী বুদ্ধদেব ভট্টাচার্য৷ তবে এখন তাঁর স্বাস্থ্যের অনেকটাই উন্নতি হয়েছে। যদিও সংক্রমণ পুরোপুরি কমেনি। বিপদও সম্পূর্ণ কাটেনি বলে জানিয়েছেন চিকিৎসকরা। কিন্তু, হাসপাতালে আর ভালো লাগছে না তাঁর৷ চিকিৎসকদের কাছে তাঁর আর্জি, এবার  তাঁকে ছেড়ে দেওয়া হোক। ঘনিষ্ঠজনেদের কাছেও একই কথা বলছেন বর্ষীয়ান এই বাম নেতা। কিন্তু এই মুহূর্তে তাঁকে হাসপাতাল থেকে ছাড়ার কোনও পরিকল্পনাই নেই চিকিৎসকদের। মেডিক্যাল বোর্ডের এক চিকিৎসক জানিয়েছেন, সংক্রমণের মাত্রা অনেকটাই কমেছে৷ কিন্তু তিনি সম্পূর্ণ সংক্রমণমুক্ত নন৷ তাঁর বাইব্যাপ সাপোর্টও পুরো সরানো হয়নি।  

ফুসফুস এবং শ্বাসনালীতে গুরুতর সংক্রমণ নিয়ে গত শনিবার উডল্যান্ড হাসপাতালে ভর্তি করা হয় বুদ্ধদেব ভট্টাচার্যকে। তার পর থেকে সেখানেই চিকিৎসা চলছে তাঁর। শনিবার রাতে তাঁকে ‘ইনভেসিভ ভেন্টিলেশনে’ দেওয়া হয়েছিল। কিন্তু অবস্থার খানিকটা উন্নতে হওয়ায় ভেন্টিলেশন থেকে বার করে আনা হয়। এখন আগের চেয়ে অনেকটাই ভাল আছেন প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী। এখন সামান্য সুস্থ হতেই বাড়ি ফিরতে চাইছেন তিনি৷ ঘনিষ্ঠমহল এবং তাঁর চিকিৎসার দায়িত্বে থাকা ডাক্তারদের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী বলছেন, ‘‘আমাকে এ বার ছেড়ে দিন।’’

কিন্তু সত্যিই কি বাড়ি ফিরতে পারবেন বুদ্ধদেব? জানা গিয়েছে, শনিবার বিকেলে হাসপাতালে ভর্তি হওয়ার পর একটি অ্যান্টিবায়োটিকের ডোজ শুরু করা হয়েছে। সেটা চলবে পাঁচ দিন। বৃহস্পতিবারের অ্যান্টিবায়োটিকের ‘কোর্স’ শেষ হওয়ার পর পর্যালোচনায় বসবে মেডিক্যাল বোর্ড। পাঁচ দিনের অ্যান্টিবায়োটিকের কোর্সের পর বুদ্ধদেবের শারীরিক অবস্থা কেমন রয়েছে, তা খতিয়ে দেখা হবে৷ অ্যান্টিবায়োটিক চালানো হবে নাকি, বন্ধ করে দেওয়া নিয়ে চিকিৎসকেরা পরবর্তী সিদ্ধান্ত নেবেন বৃহস্পতিবার। 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *