স্কলারশিপের টাকা স্কুলকে দান করল দশমের পড়ুয়া

কলকাতা: স্কলারশিপ আরও মিলবে। কিন্তু প্রয়াত ঠাকুরদার নামে কিছু করার জন্য তর সইছিল না দশম শ্রেণীর ছাত্র নভোনীলের। নিজের রোজগার নেই। তাই কী করা যায়, তা ভাবতে ভাবতেই চলে এল ন্যাশনাল মিনস কাম মেরিট স্কলারশিপের টাকা। অষ্টম শ্রেণীতে পরীক্ষা দিয়ে পাওয়া বৃত্তির দু’বছরের টাকা নভোনীল হাতে পেল দশম শ্রেণীতে উঠে। ১২ হাজার টাকা। আর সেই

স্কলারশিপের টাকা স্কুলকে দান করল দশমের পড়ুয়া

কলকাতা: স্কলারশিপ আরও মিলবে। কিন্তু প্রয়াত ঠাকুরদার নামে কিছু করার জন্য তর সইছিল না দশম শ্রেণীর ছাত্র নভোনীলের। নিজের রোজগার নেই। তাই কী করা যায়, তা ভাবতে ভাবতেই চলে এল ন্যাশনাল মিনস কাম মেরিট স্কলারশিপের টাকা। অষ্টম শ্রেণীতে পরীক্ষা দিয়ে পাওয়া বৃত্তির দু’বছরের টাকা নভোনীল হাতে পেল দশম শ্রেণীতে উঠে। ১২ হাজার টাকা। আর সেই টাকার পুরোটাই সে দান করছে ঠাকুরদা বাণীব্রত দাসের প্রতিষ্ঠা করা স্কুলে। কাঁথি ১নং ব্লকের বাদলপুর বিদ্যায়তনে পড়ে নভোনীল। যে বয়সে ছেলেপুলেরা স্মার্টফোন বা কেউ কেউ মোটরবাইক কিনে দেওয়ার জন্য চাপ দিয়ে অভিভাবকদের নাজেহাল করে তোলে, তখন নভোনীলের এই উদ্যোগকে ব্যতিক্রমী বলাই যায়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *