পার্থর বাড়ি দুর্নীতির ঘাঁটি হলে সুবীরেশের বাসস্থান ‘শাখা অফিস’, বলছে সিবিআই

পার্থর বাড়ি দুর্নীতির ঘাঁটি হলে সুবীরেশের বাসস্থান ‘শাখা অফিস’, বলছে সিবিআই

কলকাতা: রাজ্যের প্রাক্তন শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের বাড়ি ছিল নিয়োগ দুর্নীতির ঘাঁটি। বৃহস্পতিবার সিবিআই আদালতে এমনই বিস্ফোরক দাবি করেছে। তাদের স্পষ্ট কথা, এই বাড়ি থেকেই চাকরি বিক্রির কাজ হত। তবে পার্থ একা নন, সিবিআইয়ের বড় অভিযোগ রয়েছে এসএসসির প্রাক্তন চেয়ারম্যান সুবীরেশ ভট্টাচার্যের বিরুদ্ধেও। সিবিআই দাবি করেছে, পার্থর নাকতলার বাড়ি যদি দুর্নীতির ঘাঁটি হয় তাহলে সুবীরেশের বাড়ি ছিল শাখা অফিস। 

বৃহস্পতিবার নিয়োগ দুর্নীতি মামলায় বিশেষ সিবিআই আদালতে হাজির করানো হয় পার্থ চট্টোপাধ্যায়কে। আদালতে সিবিআইয়ের আইনজীবী দাবি করেছিলেন, নিজের নাকতলার বাড়ির এক তলায় অফিস চালাতেন পার্থ চট্টোপাধ্যায়। সেখানে একাধিক ‘মিডলম্যান’দের সঙ্গে বৈঠক হত তাঁর। শুধু তাই নয়, মিডলম্যানেরা যে চাকরিপ্রার্থীদের কাছ থেকে টাকা তুলতেন, তাঁদের নাম স্কুল সার্ভিস কমিশনের তৎকালীন চেয়ারম্যান সুবীরেশ ভট্টাচার্যের কাছে পাঠাতেন পার্থ। এই কারণেই সুবীরেশকে নিয়ম ভেঙে নিয়োগ করা হয়েছিল। এই প্রেক্ষিতে কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থার বক্তব্য, ওএমআর শিট জালিয়াতি থেকে শুরু করে একাধিক বিষয় নিয়ে সুবীরেশ ভট্টাচার্যর বাড়িতে বৈঠক হয়েছে। এমনকি সেখানে ‘নাইসার’-এর প্রতিনিধিরাও ছিল বহু সময়ে বলে দাবি। 

বিস্ফোরক দাবির এখানেই শেষ নেই। সিবিআই আরও জানিয়েছে, খুব পরিকল্পনা করেই সুবীরেশ ভট্টাচার্য নিয়োগ নিয়ে সিদ্ধান্ত নিতেন। তাঁর যে ‘টিম’ ছিল, তারা নিপুণভাবে কাজ সারত। বাড়ির পাশাপাশি একাধিক বৈঠক হয়েছিল আচার্য সদনে সুবীরেশের অফিস চেম্বারেও। যদিও গতকালও পার্থের আইনজীবী দাবি করেন, তাঁর মক্কেলের কোনও নিয়োগের ক্ষেত্রেই কোনও ভূমিকা ছিল না।   

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *