সেরা গীতিকার ও সুরকার হয়েও পুরস্কার নিলেন না মমতা

সেরা গীতিকার ও সুরকার হয়েও পুরস্কার নিলেন না মমতা

কলকাতা: গত বৃহস্পতিবার ছিল ‘টেলি অ্যাকাডেমি অ্যাওয়ার্ডে’র অনুষ্ঠান। প্রতিবারের মতো এবারেও অনুষ্ঠানের সূচনা করেন স্বয়ং মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এই অনুষ্ঠাবের মধ্যে দিয়ে টেলি তারকাদের হাতে পুরস্কার তুলে দেওয়া হয়৷ পশ্চিমবঙ্গ সরকার এবং টেলি অ্যাকাডেমি আয়োজিত এই অনুষ্ঠানের প্রতীক্ষায় থাকেন বাংলা টেলিভিশনের কলকুশলীরা৷ তবে শুধু অনুষ্ঠানের সূচনাই নয় টলিপড়ার অভিনেতা-অভিনেত্রীরাই নন, এদিন পুরস্কার পেয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী নিজেও। যদিও তিনি তা গ্রহণ করেননি।

মুখ্যমন্ত্রীর মধ্যে যে শিল্পী সত্ত্বা রয়েছে, শিল্পের প্রতি যে বিস্তর ভালোবাসা, সে কথা কারও অজানা নয়। তিনি এর আগেও অনেক কবিতা ও গান লিখেছেন৷ তবে অনেকেই হয়ত জানেন না, গুড্ডি ও জগদ্ধাত্রী ধারাবাহিকের গান লেখার পাশাপাশি তিনিই সুর দিয়েছেন। তাঁর সেই শিল্পীসত্ত্বাকে সম্মান জানিয়েই এদিন টেলি অ্যাকাডেমি অ্যাওয়ার্ডের মঞ্চে সেরা গীতিকার ও সুরকার হিসাবে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নাম ঘোষণা হয়। তবে পুরস্কার নেননি মুখ্যমন্ত্রী। বরং মজার ছলেই পুরো বিষয়টি এড়িয়ে যান।

এদিন মুখ্যমন্ত্রী বাংলা টেলি জগতের ভূয়সী প্রশংসা করেন। তিনি বলেন, ‘‘আমাদের বাংলা টেলিভিশনের শিল্পীদের সারা ভারতবর্ষ থেকে ডাক আসবে। তাঁরা সর্বগুণ সম্পন্ন। আমাদের শিল্পীদের মুম্বইতেও ডাকা হয়।’ ব্যস্ততার মাঝেও সিরিয়াল নিয়ে বেশ উৎসাহী মুখ্যমন্ত্রী। এদিন তাঁর মুখে শোনা যায় ‘অনুরাগের ছোঁয়া’, ‘জগদ্ধাত্রী’, ‘রামপ্রসাদ’, ‘গাঁটছড়া’, ‘নিম ফুলের মধু’, ‘হরগৌরী পাইস হোটেল’-এর মতো ধারাবাহিকের কথা। তবে শুধু নাম নিয়েই ক্ষান্ত হননি তিনি। সিরিয়ালের গল্প নিয়ে আপটুজেট তিনি। প্রায় সবকিছুই তাঁর ঠোঁটস্থ। 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *