গলিয়ে দেবে কিডনির পাথর! পাথরকুচি পাতার গুণ জানলে অবাক হবেন

কলকাতা: জীবনযাত্রায় বেনিয়ম যত বাড়ছে ততই জেঁকে বসছে হার্ট, লিভার, কিডনির অসুখ। যে রোগ একবার দেখা দিলে সারানো কঠিন হয়ে পড়ে। শরীরের অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ একটি অঙ্গ…

কলকাতা: জীবনযাত্রায় বেনিয়ম যত বাড়ছে ততই জেঁকে বসছে হার্ট, লিভার, কিডনির অসুখ। যে রোগ একবার দেখা দিলে সারানো কঠিন হয়ে পড়ে। শরীরের অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ একটি অঙ্গ হল কিডনি। একাধিক গুরুত্বপূর্ণ জটিল কাজ একা হাতে সামলায়। এহেন অঙ্গকে সুস্থ রাখতে গেলে অবশ্যই বিশেষ নজর দিতে হবে।

আজকাল কিডনিতে পাথর হওয়ার কথা প্রায়ই শোনা যায়। বিশেষজ্ঞরা বলেন, জল কম খাওয়া থেকেই মূলত কিডনির যাবতীয় অসুখের সূত্রপাত। এছাড়াও অতিরিক্ত প্রোটিন ও ক্যালসিয়াম জাতীয় খাবার খাওয়া, অতিরিক্ত মদ্যপান কিডনিতে পাথর তৈরি হওয়ার অন্যতম কারণ। সমস্যা হল কিডনিতে পাথর হলে প্রথমে অনেকেই প্রথমে বুঝতে পারেন না। ফলে চিকিৎসা না হলে পাথরের আকার বড় হতে থাকে। পরবর্তীতে কোমর বা তলপেটের অসহ্য যন্ত্রণা থেকে প্রস্রাবে সমস্যা দেখা দিলে সামনে আসে রোগের কারণ।

তবে, কিডনিতে পাথর হওয়া ঠেকানোর সেরা উপায় হল, অতিরিক্ত জল পান করা এবং স্বাস্থ্যকর খাদ্যাভ্যাস। কিডনিতে পাথর হলে এবং সেটির আকার ছোট থাকলে ওষুধের মাধ্যমে গলানো যেতে পারে। টোটকা হিসেবে কিডনি থেকে পাথর বের করার অন্যতম ওষুধ কি জানেন? পাথরকুচি গাছ। প্রতিদিন সকালে এই গাছের পাতা চিবোলে নাকি উপকার পাওয়া যায়। ভেষজ এই উদ্ভিদ সাধারণত গ্রামাঞ্চলে দেখা যায়। তবে আপনি বাড়ির টবেও এই গাছ বসাতে পারেন। বলা হয়, কিডনিতে পাথর হলে পাথরচাট্টা বা পাথরকুচি গাছের পাতা খেলে উপকার পাওয়া যায়। এছাড়াও ডাবের জল, লেবু ও সাইট্রাস জাতীয় ফল, সবুজ সবজি, টক দই প্রতিদিনের ডায়েটে রাখতে হবে। পাথরের আকার ছোট হলে সঠিক ডায়েট ও ওষুধের মাধ্যমে বেরিয়ে যেতে পারে পাথর।

বিশেষজ্ঞদের মতে, খারাপ খাদ্যাভ্যাস, শরীরের অতিরিক্ত ওজন, সাপ্লিমেন্ট এবং ওষুধ কিডনিতে পাথরের সৃষ্টি করে। কিডনিতে পাথর হলে মূত্রনালীর যে কোনও অংশকে প্রভাবিত করতে পারে। তাই কিডনির স্বাস্থ্যের দিকে নজর দেওয়া প্রয়োজন। এর জন্য কী করবেন?

কিডনির সার্বিক স্বাস্থ্যের জন্য ভালো তুলসী পাতা। এক চা চামচ তুলসী পাতার রসের সাথে ১ চা চামচ মধু মিশিয়ে প্রতিদিন সকালে পান করুন। দুই থেকে তিনটি তুলসী পাতা চিবিয়ে খেলেও কিডনিতে পাথরের ব্যথা উপশম হয়। প্রতিদিন সকালে এক গ্লাস টমেটোর রস এক চিমটি লবণ ও গোলমরিচ মিশিয়ে পান করুন। এটি কিডনিতে খনিজ লবণ দ্রবীভূত করতে সাহায্য করে আর পাথর গঠনে বাধা দেয়। তবে কিডনির পাথরের ক্ষেত্রে অবশ্যই চিকিৎসকের পরামর্শ নিয়ে ওষুধ খাওয়া উচিত। নিজে নিজে ডাক্তারি রোগের ঝুঁকি আরও বাড়িয়ে দিতে পারে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *